দিনাজপুরনিউজ২৪ ডটকমের ব্লগসাইটে আপনাকে স্বাগতম!

সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য

প্রকাশঃ ২৭ অক্টোবর, ২০১৮

সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য

কবর থেকে প্রিয়জনদের তুলে উৎসব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: কবর থেকে মৃত আত্মীয়দের কঙ্কাল তুলে চুল আঁচড়ে নতুন জামা পরিয়ে নতুন করে সাজিয়ে আবার কফিনের মধ্যে ঢুকিয়ে দেওয়া।
 
পুরো কাজটাই উদ্ভট মনে হতে পারে আপনার কাছে। কিন্তু এই উদ্ভট কাজটাই প্রথা হওয়ার কারণে প্রতি তিন বছর অন্তর একবার করে থাকেন ইন্দোনেশিয়ার টুরাজন আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষজন।

প্রয়াত প্রিয়জনদের প্রতি ভালবাসা ও শ্রদ্ধা জানাতে এই প্রথা পালন করেন টুরাজন সম্প্রদায়ের মানুষজন। এভাবে ভালবাসা ও শ্রদ্ধা জানালে জীবন 'মঙ্গলময়' হয়ে উঠবে বলেই বিশ্বাস করেন তারা।

ডেইলি মেলের প্রতিবেদনে প্রকাশ, তিন বছর অন্তর মৃত প্রিয়জনদের কবর থেকে তুলে ধুয়ে মুছে পরিষ্কার করে ভালো জামাকাপড় পরিয়ে কেতাদুরস্ত করে সবার সামনে আনা পর্যন্তই সমাপ্ত হয় না এই রীতি। এরপর মৃত প্রিয়জনদের সাথে একই ফ্রেমে ফ্যামিলি ছবিও তোলা হয়।

ইন্দোনেশিয়ার সুলাওয়েসি দ্বীপের ওই সম্প্রদায় 'মানেনে' নামে রীতিমতো উৎসব করে এই প্রথা পালন করে থাকেন। মানেন উৎসবের এই রীতি শতাব্দী প্রাচীন। এই সম্প্রদায়ের কাছে মৃত্যুর পরের শেষকৃত্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই অনেকেই সারা জীবন আয় থেকে একটা বড় অংশ সঞ্চয় করে রাখেন, যাতে মৃত্যুর পর তার জন্য চোখ ধাঁধানো শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের আয়োজনে কোনো খামতি না থাকে। বেশ কয়েক দিন ধরেই এই অন্ত্যেষ্টি চলে।

মৃত ব্যক্তির আত্মার শান্তির জন্য মহিষ বা শুয়োর বলি দেওয়া হয়। বলি দেওয়া প্রাণীর শিং ঝুলিয়ে রাখা হয় মৃত ব্যক্তির বাড়ির সামনে। বাড়ির সামনে শিংয়ের সংখ্যা যত বেশি হবে, মৃত ব্যক্তির সম্মানও তত বৃদ্ধি পাবে।

তবে এখানে শিশুদের কফিন ঢুকিয়ে কবর দেওয়া হয় না। দাঁত ওঠার আগে কোনো শিশু মারা গেলে তাকে কাপড়ে পেঁচিয়ে গাছের গুড়ির মধ্যে গর্ত করে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়।

সাড়ে ৬ লাখ মানুষ এই টুরাজন সম্প্রদায়ের অন্তর্গত। খ্রিষ্টান ও ইসলাম ধর্ম অনুসরণ করেন তারা। এখানে আর এক ধর্মের প্রচলন রয়েছে, আর তা হল আলুক টুডুল ধর্ম।

ব্লগার Najmun Nahar Nipa এর অন্যান্য পোস্টঃ
আপনার পছন্দের তালিকায় আরও থাকতে পারেঃ
0 মন্তব্য
আপনার মতামত দিন
বাংলা বর্ণমালার তৃতীয় বর্ণ কোনটিঃ
Hit enter to search or ESC to close
হ্যালো, আমার নাম

Najmun Nahar Nipa

Graphics Designer