দিনাজপুরনিউজ২৪ ডটকমের ব্লগসাইটে আপনাকে স্বাগতম!

প্রকাশঃ ২৩ আগস্ট, ২০১৯

ঐতিহাসিক ফুলহার প্রাচীন জামে মসজিদ।

গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়নের ফুলহার গ্রামে এই ঐতিহাসিক প্রাচীন জামে মসজিদটি অবস্থিত। মসজিদটি কবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তা কেহই সঠিক ভাবে বলতে পারে না। তবে লোক মুখে শোনা যায় এটি নাকি গায়েবি মসজিদ। আবার অনেক বয়স্ক লোক বলে তারা নাকি তাদের দাদাদের নিকট শুনেছে এটি বুদা মন্ডল নামের এক ব্যক্তি মসজিদটি তৈরী করেছিলেন। তবে মসজিদটির কারুকাজ দেখলে মনে হয় এটি মোগল আমলের তৈরী মসজিদ। তবে এর সঠিক তথ্য আজও জানা যায়নি। মহাল আল্লাহ জানেন এর কি কাহিনী। মসজিদটি অবস্থিত করতোয়া নদীর তীরে। তবে এখন দেখলে বুঝা যায় না যে মসজিদটি কোনো নদীর অবস্থিত। কারন নদী এখন মসজিদ থেকে অনেক দূরে। আমি ছোট বেলায় দেখেছি মসজিদটির পাশ দিয়ে করতোয়া নদী প্রবাহিত। তবে অবাক করা বিষয় হলো মসজিদটির পূর্বদিকে মন্দির এবং উত্তর পাশে রান্না করা এবং অন্যান্য কাজের জন্য একটি ঘর। এমন দৃশ্য দেখার পর মনে হয়- আগে প্রত্যেক ধর্মের মানুষ মিলে মিশে যে যার ধর্ম পালন করতো। জেনে আরও অবাক হবেন- অনেক দূর দূরান্ত থেকে মানুষ মসজিদটিতে বিভিন্ন মানত নিয়ে আসেন- যেমন মাংস দিয়ে খিচুরী, খুরমা,মোমবাতী,লবন ইত্যাদি। যারা মানত নিয়ে আসেন তাদের নিকট থেকে জানতে চাইলে বলে- যে আশা নিয়ে মানত করেছিলাম তা পূরুন হয়েছে তাই মানতটি দিতেই হবে- না দিলে ক্ষতি হতে পারে। জানিনা এর সত্যতা কতটুকু তবে মহাল আল্লাহ ভালো জানে।

শেয়ার করুনঃ
ব্লগার MD.ZIAUR RAHMAN এর অন্যান্য পোস্টঃ
আপনার পছন্দের তালিকায় আরও থাকতে পারেঃ
0 মন্তব্য
আপনার মতামত দিন
বাংলা বর্ণমালার তৃতীয় বর্ণ কোনটিঃ
Hit enter to search or ESC to close
হ্যালো, আমার নাম

MD.ZIAUR RAHMAN